নাটোরে মাদরাসা ছাত্রীকে গণধর্ষণের অভিযোগে আটক ৫

রা জ শা হী র আ লোঃ – নাটোর সদর উপজেলার ছাতনী শশ্মান এলাকায় এক মাদরাসা ছাত্রীকে গণধর্ষণের অভিযোগে পুলিশ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করলেও দুজন পালিয়ে গেছে। বর্তমানে নির্যাতিত ওই স্কুলছাত্রী নাটোর সদর থানায় পুলিশ হেফাজতে রয়েছে।

গতকাল শুক্রবার বাদ জোহর নাটোরের পুলিশ সুপার এক প্রেস ব্রিফিংয়ে জানান, গত বৃহস্পতিবার দুপুরে নির্যাতিত ওই ছাত্রী বিদ্যালয় থেকে আসতে দেরি হলে ও তার নতুন পোষাক কেনা নিয়ে বাবা মার সঙ্গে কথাকাটাকাটি হয়।

পরে অভিমান করে বিকেলে সদর উপজেলার আগদিঘা নানার বাড়িতে আসার উদ্দেশে রওনা হয় সে। সন্ধ্যার দিকে অটোরিকশায় ছাতনী এলাকায় পথ হারিয়ে ফেলে ওই ছাত্রী। এ সময় ওই ছাত্রীকে নানির বাড়িতে নেওয়ার কথা বলে একজন যুবক তাকে ভ্যানে উঠিয়ে যেতে থাকে।

এ সময় এলাকার বখাটেরা ওই ছেলের সঙ্গে মেয়েটির অনৈতিক সম্পর্কের ভয় দেখিয়ে ভ্যান থেকে নামিয়ে দেয়। এরপর মেয়েটিকে নিয়ে ছাতনী শশ্মান এলাকায় গিয়ে গণধর্ষণ করে।

পরে রাত ২টার দিকে এলাকাবাসী বিষয়টি বুঝতে পেরে ৯৯৯ এ কল দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ৫ জনকে আটক করলেও ২ জন পালিয়ে যায়। এ ছাড়া নির্যাতিত ছাত্রীকেও উদ্ধার করা হয়।

এসপি বলেন এ ঘটনায় মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন। ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষা শেষে আদালতে জবানবন্দীর জন্য প্রেরণ করা হবে। অপরদিকে গ্রেপ্তারকৃতদের আদালতে সোপর্দ করা হলে আদালত তাদের জামিন না মঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।