শিক্ষক লাঞ্ছনার বিচার না হলে অসহযোগ আন্দোলনের হুঁশিয়ারি

আলো ডেস্ক: বগুড়া ও গোপালগঞ্জ জেলায় দুই শিক্ষককে লাঞ্ছিত করায় তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে এর বিচার দাবি করেছেন শিক্ষকরা। দাবি মেনে নেওয়া না হলে সারাদেশে অসহযোগ আন্দোলন করা হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন। গতকাল বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে প্রধান শিক্ষক পরিষদের মানববন্ধনে এমন দাবি করা হয়। পরিষদের নেতৃবৃন্দ বলেন, বগুড়া ও গোপালগঞ্জের দুই প্রধান শিক্ষককে শারীরিকভাবে নির্যাতন করা হয়েছে। তারা লাঞ্ছিত হয়েছেন স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির মাধ্যমে। এমন ঘটনা আমরা মেনে নেব না। শিক্ষককে লাঞ্ছিত করে দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে উন্নত করা যাবে না। তারা আরও বলেন, যে দেশে শিক্ষক সমাজ লাঞ্ছিত, সেখানে সোনার বাংলা গড়ে উঠবে কীভাবে? যারা শিক্ষকদের লাঞ্ছিত করে আমরা তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করি। দাবি মেনে নেওয়া না হলে সারাদেশে অসহযোগ আন্দোলন শুরু হবে। মানববন্ধনে বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্টের সচিব অধ্যক্ষ মো. শাহজাহান আলম সাজু বলেন, মানুষ গড়ার কারিগরদের ওপর শারীরিক নির্যাতন কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। স্কুল-কলেজের ম্যানেজিং ও গভর্নিং বডির সভাপতির কাছে প্রতিষ্ঠানের প্রধানদের জিম্মি করে রাখা হচ্ছে। সভাপতিদের কোনো কাজ না থাকায় তারা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়ন করছেন, এটি কোনোভাবেই মেনে নেওয়া হবে না। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষা অনুরাগীদের সভাপতির পদে বসানোর দাবি জানান তিনি। বলেন, বর্তমানে সারাদেশে যখন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের আন্দোলন শুরু হয়েছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিক্ষকদের আন্দোলনকে যৌক্তিক বলে মেনে নিয়েছেন, তখন একটি মহল তা বানচাল করতে লিপ্ত হয়েছে। তাদের শক্ত হাতে দমন করতে শিক্ষকদের উদ্দেশে আহ্বান জানান তিনি।