সৎ থাকলে লক্ষ্যে পৌঁছানো সম্ভব: প্রধান বিচারপতি

আলো ডেস্ক: প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী বলেছেন, যদি প্রচণ্ডভাবে সৎ থাকা যায় তবে নির্দিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছানো সম্ভব। যা আমার জীবনে ঘটেছে। আসুন, আমরা সবাই সৎ থাকার চেষ্টা করি। কেননা, আমরা একাত্তরের রক্তের কাছে দায়বদ্ধ। দেশের ২৩তম প্রধান বিচারপতি নিযুক্ত হওয়ায় গত বৃহস্পতিবার রাত ৯টায় কুষ্টিয়া জেলা আইনজীবী সমিতির পক্ষ থেকে দেওয়া সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আইনজীবী ও বিচারকদের উদ্দেশে তিনি এ কথা বলেন। প্রধান বিচারপতি বলেন, জীবনে বহু উত্থান-পতন আসবেই।

ধৈর্য ধরতে হবে, অপেক্ষা করতে হবে নিমগ্ন সাধনার মধ্য দিয়ে। সৎ ও পরোপকারী হতে হবে। ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। মানুষ মানুষের ক্ষতি করার চেষ্টা করবে, কিন্তু মনোবল হারালে চলবে না। তিনি বলেন, রাজনীতি কিংবা ক্ষোভের বশবর্তী হয়ে কারও প্রতিভা ও যোগ্যতার অসম্মান করা ঠিক নয়। এ সময় নিজের জীবনের নানা চড়াই-উৎরাইয়ের কথা তুলে ধরেন প্রধান বিচারপতি।

তিনি বলেন, আমি চেষ্টা করবো দেশের ৬৪ জেলায় সৎ ও যোগ্য জেলা জজ নিয়োগ দেওয়ার। একজন জেলা জজ যদি ভাল হয় তার অধিনস্থ অন্যান্য জজরাও ভালো হবেন। আমি আইনজীবীদের অনুরোধ করবো, আপনারা বিচারকদের সহযোগিতা করুন। যাতে বিচারপ্রার্থীরা দ্রুত বিচার পেতে পারে। কুষ্টিয়া জেলা আইনজীবী সমিতির পক্ষ থেকে প্রধান বিচারপতির সংবর্ধনা উপলক্ষে নৈশভোজ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

আইনজীবী সমিতির চত্বরে আয়োজিত এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাড. আ. স. ম আখতারুজ্জামান মাসুম। জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. দেওয়ান মাসুদ করিম মিঠুর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি মো. আবু জাফর সিদ্দিকী, বিচারপতি ড. আখতারুজ্জামান, বিচারপতি আবু বকর সিদ্দিকী, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও কুষ্টিয়া সদর আসনের সংসদ সদস্য মাহবুব-উল-আলম হানিফ, কুষ্টিয়া-১ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাড. আ. ক. ম সরওয়ার জাহান বাদশা, কুষ্টিয়া-৪ আসনের সংসদ সদস্য ও যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ব্যারিস্টার সেলিম আলতাফ জর্জ, কুষ্টিয়ার বিজ্ঞ জেলা ও দায়রা জজ শেখ আবু তাহের, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খান, সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আসগর আলী, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাজী রবিউল ইসলাম, কুষ্টিয়া ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ট্রেজারার প্রফেসর ড. সেলিম তোহা, জেলা জজ শীপের সব বিচারক, আইনজীবী সমিতির সদস্য ও জেলার বিশিষ্টজনরা।